ইসলামই একমাত্র ধর্ম

‘দ্বীন’ বা ধর্ম যা মানাুষকে শৃঙ্খলিত করে, সভ্য করে গড়ে তুলে এবং মুক্তির ব্যবস্থা করে অনন্ত সুখের স্থানে মানুষকে পৌছায়। আর সে দ্বীন কি? -এ ব্যাপারে আল্লাহ পাক ইরশাদ করেন- {অর্থাৎ-দ্বীন বা ধর্ম আল্লাহর নিকট ‘ইসলাম’। ( সূরা আলে ইমরান:-১৯ )}

সুতরাং একমত্র ‘দ্বীন’ ইলো ‘ইসলাম’। ইসলাম ছাড়া আর কোন ধর্মই আল্লাহ্ তা‘আলার মনোনীত নয়।এ ছাড়া অন্য কোন দ্বীনকে সহীহ্ হিসাবে মানা কিংবা গ্রহন করার অর্থ হল, কুরআন পাকের এই আয়াতকে অস্বীকার করা।কাজই ইসলাম ছাড়া অন্য কোন ধর্ম গ্রহনযোগ্য নয় এবং এর পরিনতি অনেক মন্দ।আল্লাহ্ তা‘আলা ফরমান- আর যে ইসলাম ছাড়া অন্য কোন ধর্ম খুঁজে, কখনোই তা গ্রহন করা হবে না এবং আখেরাতে সে ক্ষতিগ্রস্তদের অন্তর্ভূক্ত।(সূরা আলে ইমরান: ৮৫)

বস্তুতঃ ইসলামই সকল নবী রাসুলগণের অভিন্ন ধর্ম। হযরত আদম আলাইহিস্ সাল্লাম থেকে শুরু করে শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা আহমাদ মুজতাবা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পর্যন্ত আগমনকারী সকল নবী রাসূলগণই মানাষকে ইসলামের দিকে আহবান করেছেন।‘ইসলাম’ এর মর্ম হল- আল্লাহ্’র পরিপূর্ণ আনুগত্য করা। আর প্রত্যেক নবী রাসূলগণও তাই করেছেন এবং উম্মতদেরকে এর দিকেই দা্ওয়াত দিযেছেন। তবে একেকজন নবীর শরীয়ত ছিল একেক রকম। কিন্তু সকলের উদ্দেশ্য আল্লাহ্’রই আনুগত্য।তবে এ দ্বীনের নাম ‘ইসলাম’ – এ নামকরন এবং উম্মতকে ‘উম্মতে মুসলিমাহ্’ বলে অবিহিত করেছেন, সর্বপ্রথম হযরত ইব্রাহীম আলাহহিস্ সালাম। পবিত্র কুরআন মাজীদে হযরত ইব্রাহীম আলাইহিস্ সালাম – এর ফরিয়াদ এভাবে ইরশাদ হয়েছে-

হে আমাদের রব ! আমাদের উভইকে ‘মুসলিম’ তথা তোমার অনুগত বানাও এবং আমাদের বংশধর হতেও এক ‘উম্মতে মুসলিমাহ্’ তথা তোমার এক অনুগত উম্মত বানাও। ( সূরা বাক্বারা:128)

Posted in Uncategorized | 2 Comments